আজ সোমবার, ২০ জানুয়ারী ২০২০, ৬ মাঘ ১৪২৬           আমাদের কথা    যোগাযোগ
Owner

শিরোনাম

  জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল কপোতাক্ষ নিউজের জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহী প্রার্থীরা ০১৭১৯২৮০৮২৭ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

ছেলেধরা গুজব, বাস্তবতা এবং আমাদের করণীয়


ছেলেধরা গুজব, বাস্তবতা এবং আমাদের করণীয়

প্রকাশিতঃ শুক্রবার, জুলাই ২৬, ২০১৯   পঠিতঃ 112644


এম. এ. আলিম খান: বর্তমানে ছেলেধরা গুজব মহামারী আকারধারণ করেছে। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল বিশেষ করে মাগুরা, যশোর, সাতক্ষীরা, খুলনা থেকে কয়েক মাস আগে এই গুজব শুরু হয়। অনেক এলাকায় রাত জেগে পালাক্রমে পাহারা দিয়েছে এলাকাবাসী। অপরিচিত লোক বিশেষ করে মহিলা এবং রোহিঙ্গাদের মত দেখতে হলেই তাকে ছেলেধরা মনে করে মারা হয়েছে। কয়েকজন মারাও গেছে।

১১মে প্রথম আলোয় প্রকাশিত এক রিপোর্টে দেখা যায়, ‘১০মে খুলনার ডুমুরিয়া  উপজেলার মাগুরঘোনার কাঁঠালিয়া বাজার এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে অজ্ঞাত এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ বলেছে, নিহত ঐ ব্যক্তি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন।’

একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ১১মে প্রকাশিত এক রিপোর্টে দেখা যায় সাতক্ষীরা শহরের কুকরালি মোড়ে রোহিঙ্গা ছেলেধরা সন্দেহে রিয়াজ উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে গণপিটুনি দেয়া হয়।’

১৭মে স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল ২৪ এ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, ‘যশোরে ছেলেধরা আতঙ্ক; অচেনা ব্যক্তিকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে দিচ্ছে স্থানীয়রা।’

বেশ কয়েকদিন বিষয়টি নিয়ে এরকম কোন গুজবে কথা আর শোনা যায়নি। হঠাৎ করে এই গুজব অনেকটা প্রকট আকার ধারণ করেছে। গত ১৮ জুলাই নেত্রকোনায় নিউটাউন পুকুরপাড় এলাকায় রবিন নামে এক যুবকের ব্যাগে ৭ বছরের শিশুর কাটা মাথা পাওয়া যায়। স্থানীয় জনগণ ঐ যুবককে পিটিয়ে হত্যা করে। ১৯ জুলাই ঢাকার কেরানীগঞ্জের রসুলপুর গ্রামে ২ যুবকের গতিবিধি সন্দেহজনক হলে তাদেরকে গণপিটুনি দেয়। গণপিটুনিতে একজন মারা যায়।

২০ জুলাই ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের ২জনকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঢাকার বাড্ডায় ছেলেধরা গুজবে গণপিটুনিতে প্রাণ গেল তাসলিমা বেগম রেনু। তাসলিমা বেগম উত্তর-পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন খোঁজ খবর নিতে তার চার বছরের মেয়েকে ভর্তি করাবেন বলে। কিন্তু লাশ হয়ে ফিরতে হলো তাকে। একই দিনে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে বাকপ্রতিবন্ধী এক যুবককে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সাভারে অজ্ঞাত এক নারীকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। 

২১ জুলাই টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সয়া হাটে মাছ কিনতে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হয়েছেন ভ্যানচালক মনু মিয়া নামে এক ব্যক্তি। আহত মনু মিয়া বর্তমানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন। কুমিল্লার সদর উপজেলায় ৩জনকে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি দেয়া হয়েছে। মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার হালিমা বেগম নামে এক নারী একটি মেয়ে শিশুকে নিয়ে পালানোর সময় ধরা পড়ে তাকে গণপিটুনি দেয়া হয়েছে। চট্রগ্রামের বাঁশখালীতে ছেলে ধরা সন্দেহে জনি, সোহেল ও হৃদয় নামে ৩ যুবক গণপিটুনির শিকার হয়েছে। নীলফামারীর সৈয়দপুরে ছেলেধরা সন্দেহে এক নারীসহ ৪জনকে গণপিটুনি দিয়েছে। সোমবার কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলায় ছেলেধরা সন্দেহে মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারীকে পিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। রাজশাহীর চারঘাট উপজেরার ৫ এনজিও কর্মীকে ছেলেধরা গুজবে গণপিটুনি দিয়ে আহত করেছে। মাদারীপুর সদর উপজেলার বৈরাগীর বাজার এলাকায় এক মানসিক ভারসাম্যহীন নারীকে ছেলেধরা সন্দেহে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন করেছে স্থানীয়রা। 

কেউ কেউ গুজব ছড়িয়ে নিজেদেও স্বার্থসিদ্ধি করছে এমন বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। ২২ জুলাই রাতে নেত্রকোণার কেন্দুয়ার সান্দিকোনা ইউনিয়নের সানরাইজ কিন্ডারগার্টেনের ৭ম শ্রেণির ছাত্র তানিম ব্লেড দিয়ে হাতের তালু কেটে ‘গলাকাটা’ নাটক সাজাতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে। তানিম পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে সে তার খালা ও খালুর পরামর্শে একাজ করেছে। উল্লেখ্য তানিম তার খালার বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করতো। পুলিশ ঘটনাটি তদন্ত করছে। 

২২ জুলাই সোমবার রাজধানীর যাত্রাবাড়িতে একজনকে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনি দেয়া হয়। পরে জানা যায় এটি বাড়ির মালিকের বকেয়া বাড়িভাড়া নিয়ে কলহের কারণে ভাড়াটিয়াকে গণপিটুনি দেয়।

২৩ জুলাই মঙ্গলবার গাজীপুর জেলার শ্রীপুরে ছেলেধরা অভিযোগে গণপিটুনির শিকার হন এক দম্পতি। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। পরে পুলিশ জানতে পারে যে স্বামীর একাধিক বিয়ে নিয়ে পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে তারা বাকবিতন্ডতায় জড়িয়ে পড়ে। এসময় তারা এক অপরকে ছেলেধরা বলে চিৎকার করলে স্থানীয়রা তাদেরকে গণপিটুনি দেয়।

একই দিনে বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে এরকম একটি ঘটনা ঘটেছে। স্ত্রী, শ্বশুর ও শাশুড়ি মিলে স্বামীকে পরিকল্পিতভাবে ছেলেধরা বলে রিবুল হোসেন (২৩) নামে এক ব্যক্তির গণপিটুনি আয়োজনের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় পুলিশ তার স্ত্রী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে। 

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় অর্ধবাষিক পরীক্ষায় ২ বিষয়ে ফেল করে বাবা-মায়ের বকুনি থেকে রেহায় পেতে ছেলেধরা নাটক সাজিয়েছে সরকারি ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ৯ম শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র জামিউল ইসলাম জয়।

দৈনিক যুগান্তরে প্রকাশিত এক রিপোর্টে দেখা যায়, ‘২৪ জুলাই সকালে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার কয়রাডাঙ্গা গ্রামের নুরানি হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানার ছাত্র আবির হোসেনের (১১) (ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ উপজেলার খালিশপুর গ্রামের প্রবাসী আলী হোসেনের ছেলে) মাথা বিহীন লাশ মাদ্রাসার পার্শ্ববর্তী কেডিবি ইটভাটার পাশে পড়ে থাকতে দেখা যায়।’ পুলিশ লাশ উদ্ধার ময়না তদন্তের পর বলেছে এটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড। নিহত ওই ছাত্রকে দীর্ঘদিন ধরে যৌন নির্যাতন চালানো হয়েছে। এটি ছেলেধরা নয়, বলাৎকারপূর্বক মাদ্রাসা ছাত্রকে গলাকেটে হত্যা করেছে।’ 

ছেলেধরার প্রত্যেকটি ঘটনা তদন্ত ও বিশ্লেষণ করলে দেখা যাচ্ছে এটি একটি গুজব এবং অনেকে ব্যক্তিস্বার্থ চরিত্রার্থ করতে ছেলেধরা নাটক সাজাচ্ছে। মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিরাই এই ছেলেধরা সন্দেহে বেশি গণপিটুনির শিকার হচ্ছে। তবে অনেক ভাল মানুষও ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির শিকার হচ্ছে।

২৩ জুলাই দুপুরে চট্রগ্রাম নগরীর উত্তর কাট্রলী মুন্সিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পরিদর্শনে গিয়ে ছেলেধরা সন্দেহের শিকার হয়েছেন চট্রগ্রাম প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এডিপিও তাপস পাল। তবে তিনি স্কুল কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের সহযোগিতায় গণপিটুনির হাত থেকে রক্ষা পেয়েছেন। 

সারাদেশে বিরাজ করছে ছেলেধরা আতঙ্ক। প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে কোন না কোন ব্যক্তি গণপিটুনির শিকার হচ্ছে। এনিয়ে অভিভাবকদের মধ্যেও বিরাজ করছে এক ধরনের আতঙ্ক। ছেলেধরা গুজবে অনেক অভিভাবক তাদের সন্তানকে স্কুলে পাঠাচ্ছেন না। ফলে স্কুলে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি কমেগেছে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিভাবকদের গুজবে কান না দিয়ে সন্তানদের নির্ভয়ে স্কুলে পাঠাতে অনুরোধ করেছেন। নীলফামারী, পটুয়াখালীসহ কয়েকটি জেলায় স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি বেশ কম। অনেক অভিভাবক স্কুলে সন্তানকে দিয়ে যাচ্ছেন আবার ছুটির পরে বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন।

ঢাকা টাইমস্ এ প্রকাশিত এক রিপোর্টে জানা যায়, রাজধানী বাড্ডার নামাপাড়া এলাকার গৃহশ্রমিক রাশিদার দুই ছেলে বড়টার বয়স ১৪বছর এবং ছোটটার ৭বছর। দুইজনকেই তিনি স্কুলে যেতে দিচ্ছেন না। এমনকি তার রিকসা শ্রমিক স্বামীকেও বাইরে যেতে দিচ্ছেন না। মতিঝিল মডেল স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক মোহাম্মদ শফি বলেন, ‘অনেক অভিভাবক আমাদের কাছে ফোন করে জানতে চান কতজন বাচ্চা এ পর্যন্ত নিখোঁজ হয়েছে? এটা আমাদের জন্য খুবই দঃখজনক। এর মানে অভিভাবকরা অনেক বেশি আতঙ্কিত।’

এদিকে জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে ছেলেধরা সম্পর্কে সতর্ক করে গুজবে কান না দেওয়ার আহবান করা হয়েছে। সন্দেহভাজন মনে হলে নিকটস্থ থানায় অথবা ৯৯৯ নম্বরে যোগাযোগ করে তথ্য দিতে বলা হয়েছে। সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ ‘ছেলেধরা’ সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন করতে মসজিদের খতিব/ইমামদের প্রতি আহবান করেছেন। পুলিশ সদরদপ্তর থেকে বিশেষ সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। ‘গুজব ছড়াবেন না, আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না।’ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘‘পদ্মা সেতুতে মাথা ও রক্ত লাগবে’’ এই গুজবকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে বেশ কয়েকজন নিহত হবার ঘটনা ঘটেছে।

দেশবাসীর জ্ঞাতার্থে আবারো জানানো যাচ্ছে যে, এটি সম্পূর্ণরুপে একটি গুজব। কোন প্রকার গুজবে কান দিবেন না  এবং গুজব ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না। সেই সাথে দেশবাসীকে অনুরোধ করা হচ্ছে যে, গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে ছেলে ধরা সন্দেহে কাউকে গণপিটুনি দিয়ে আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না।

এপর্যন্ত গণপিটুনির ফলে যতগুলো নিহতের ঘটনা ঘটেছে তার প্রত্যেকটি ঘটনা আমলে নিয়ে পুলিশ তদন্তে নেমেছে এবং জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। এধরণের গুজব ছড়িয়ে দেশে অস্থিতিশীলতা তৈরি করা রাষ্ট্র বিরোধী কাজের সামিল এবং গণপিটুনি দিয়ে মৃত্যু ঘটানো গুরুতর ফৌজদারী অপরাধ। আসুন আমরা সকলে সচেতন হই, গুজব ছড়ানো এবং গুজবে কান দেয়া থেকে বিরত থাকি। কাউকে ছেলে ধরা সন্দেহ হলে গণপিটুনি না দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেই।’’

২১ জুলাই মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে ছেলেধরা বিষয়ক গুজব সম্পের্ক সচেনতা সৃষ্টির জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠান প্রধান ও শিক্ষকদের সতর্ক করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘কোনো অবস্থাতেই শিক্ষার্থীদের কেন্দ্র করে এধরণের পরিস্থিতি যেন সৃষ্টি না হয় তার জন্য সর্বদা সচেতন থাকতে হবে এবং শিক্ষার্থীদেরও এবিষয়ে সচেতন করতে হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক দূর্গা রানী সিকদার সাক্ষরিত এক পত্রে এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। 

সরকার গুজব প্রতিরোধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছে। পুলিশের আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ২৪ জুলাই বুধবার পুলিশ সদর দপ্তরে একসংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, গুজব ও গণপিটুনির মামলায় ৩১টি মামলায় এপর্যন্ত ১০৪জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ৬০টি ফেসবুক একাউন্ট, ২৫টি ইউটিউব লিংক এবং ১০টি ওয়েব পোর্টাল বন্ধ করা হয়েছে।’ এদিকে গুজব রোধে ৬১ লাখ আনসার সদস্যকে মাঠ পর্যায়ে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ। স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশের পক্ষ থেকে জনসচেতনা সৃষ্টিতে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালনো হচ্ছে। জনসাধারণকে গুজবে কাননা দিতে অনুরোধ করা হচ্ছে। সন্দেহজনক কাউকে দেখলে আইন হাতে না নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে খবর দিতে বলা হয়েছে। 

লেখকঃ সাংবাদিক ও উন্নয়নকর্মী

এম. এ. আলিম খান / কামরুজ্জামান রাজু


মন্তব্য করুন

মজিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

কেশবপুরের এমপি ইসমাত আরা সাদেকের সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

ভারত সরকারের উদ্দেশ্য কী, তা বুঝতে পারছি না : শেখ হাসিনা

নির্বাচনকে বিতর্কিত করার জন্য অংশগ্রহণ করেছে বিএনপি : কাদের

ঢাকা সিটি নির্বাচনের তারিখ পেছানো প্রসঙ্গে বিভিন্ন মহলের প্রতিক্রিয়া

পুরুষের চেয়ে নারীর বেশি আয়ের শীর্ষে বাংলাদেশ

জামিন শুনানি কাল, হয়রানি–গ্রেপ্তার না করার নির্দেশ হাইকোর্টের

নাটোরে বৃদ্ধা হত্যাকান্ডে আটক ব্যক্তির মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন

ছেলে সন্তান না হওয়ায় মেয়েকে পুকুরে ফেলে হত্যা বাবার

এবার পেছাল অমর একুশে গ্রন্থমেলা

কয়রায় গাজাসহ আটক-১

নুুরের সাক্ষাতে মালয়েশিয়ার মাসা ইউনিভার্সিটির ভিপি

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আমি চাই আমাকে দেখে আর দশটা মেয়ে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হোক - শ্রাবন্তী অনন্যা

বিএনপি নেতা আবু বকর আবু’র জানাজায় হাজারো মানুষের ঢল

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা