আজ রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭           আমাদের কথা    যোগাযোগ

শিরোনাম

  প্রতিনিধি হইতে ইচ্ছুকরা ০১৭৪৭৬০৪৮১৫ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

কিশোর কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের জন্মদিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি


কিশোর কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের জন্মদিনে শ্রদ্ধাঞ্জলি

প্রকাশিতঃ বুধবার, মে ১৩, ২০২০   পঠিতঃ 184464


সিগারেটের মতো স্বল্প অায়ু নিয়ে যে কবি অামাদের মাঝে এসেছিলেন,বুকে যার জ্বলে উঠবার দূরন্ত উচ্ছ্বাস তিনি কিশোর কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য। জন্ম ১৫ আগস্ট ১৯২৬, মৃত্যু ১৩ মে ১৯৪৭। মাত্র ২১ বছরের জীবনকাল। অাজ তাঁর ৭৩ তম মৃত্যুবার্ষকী। শ্রদ্ধাঞ্জলি।

পিতা নিবারণচন্দ্র ভট্টাচার্য, মা সুনীতি দেবী। তিনি জন্মেছিলেন কলকাতায় মাতামহের ৪২ নং মহিম হালদার স্টিটে। ছ,বছর বয়সে তাকে ভর্তি করা হয়েছিল কমলা বিদ্যা মন্দির স্কুলে। মাত্র সাত বছর বয়সে তিনি লেখা শুরু করেন। কিশোর বয়সে কাব্যচর্চার কারণে তিনি কিশোর কবির অভিধায় পরিচিতি লাভ করেন।
যখন তিনি চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র সে সময় হাতে লেখা পত্রিকা 'সঞ্চয়' প্রকাশ করেন। তারপর থেকে তিনি লিখতে থাকেন মানুষের জন্য। তবে লিখেছেন খুব অল্পদিন। তবে এত অল্প সময়ে বাংলা সাহিত্যে তিনি যা রেখে গেছেন তা অাজও সাধারণ মানুষকে অান্দোলিত অালোড়িত করে। তাঁর প্রতিটি রচনায় পাওয়া যায় বিদ্রোহ, বিপ্লব অার সমাজ পরিবর্তনের অাভাস। সিঁড়ি, একটি মোরগের কাহিনী, বোধন, রানার, চারাগাছ, কলম,সিগারেট, একটি দেশালাইকাটি ইত্যাদি কবিতার প্রতিটি শব্দ,প্রতিটি চরণই তার বাস্তব অভিজ্ঞতার চিন্তার ফসল।
ছোট থেকেই লেখাপড়ার প্রতি খুব বেশী মনোযোগী ছিলেন না। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা শেষে তিনি বেলেঘাটা দেশবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। পাঠ্য বইয়ের প্রতি তেমন মনোযোগ ছিলো না। যে কারণে দুইবার প্রবেশিকা পরীক্ষা দিয়েও পাস করতে পারেননি।

 এ ব্যাপারে তাঁর সরল স্বীকারোক্তি 'কোন কাজটা পারিনাকো বলতে পারি ছড়া পাশের পড়া পড়ি না ছাই পড়ি ফেলের পড়া, পড়তে বসে থাকে অামার পথের দিকেই চোখ পথের চেয়ে পথে লোকের দিকেই বেশী ঝোক।

দুষ্টুমি অার দুরন্তপনায় নতুন নতুন বুদ্ধি তিনি সব সময় অাবিস্কার করতেন। একদিন তার বড় বৌদি বৃষ্টির সময় রান্না ঘরে রান্না করছেন। সুকান্ত তখন বড় ঘরে কিছু একটা করছিলো। দরজা দিয়ে হাওয়া অার বৃষ্টির ছাট অাসছে। বৌদি তাকে বললেন- সুকান্ত দরজাটা দে। দু' একবার বলাতে সে গ্রাহ্য করলো না। বৌদির ভীষণ রাগ হলো। তখন বৌদি চেচিয়ে বললেন - কথাটা কানে যাচ্ছে না। দরজাটা দে। সুকান্ত তখন দরজাটা ধরে দু'চারবার টানাটানি করে হতাশ ভঙ্গি করে বললেন- বৌদি তোমার কথা রাখতে পারলাম না। দরজাটা তুমি চাইছো কিন্তু অামি দিতে পারলাম না। এটা বড্ড ভারী। বৌদি কোন রকমে হাসি অার রাগ চেপে গম্ভীর গলায় বললেন- দরজাটা বন্ধ কর। ও তাই বলো, ব্যাকরণ শুদ্ধ করে বলবে তো। দরজা দিতে বলছো দরজা কি দেওযা যায়। বৌদি তখন বললেন- বাদর। সুকান্ত সঙ্গে সঙ্গে মুখ কাঁচু মাচু করে জবাব দিলেন- না বৌদি তোমার দিক ভুল হয়েছে ওটা বাঁ দোর না ডান দোর।

ছাত্র অবস্থায় তিনি কলকাতা রেডিওর গল্পের অাসরের সভ্য ছিলেন। তিনি সেখানে অাবৃত্তি করতেন। প্রতি রবিবার সকালে তিনি রেডিও নিয়ে বসে যেতেন রবীন্দ্র শিক্ষার অাসর তার খুব প্রিয় ছিলো। কানে কম শুনতেন এ কারণে রেডিওতে কান লাগিয়ে দিতেন। সেই দুষ্ট বালক মাত্র ২১ বছরের জীবনে গণমানুষের কবি হয়ে উঠলেন তাঁর রচনার মধ্যে দিয়ে। কবিতার পাশাপাশি  তিনি খুব চমৎকার পত্র রচনা করতেন। তাঁর প্রিয় বন্ধু অরুণাচল বসুকে লেখা বহু পত্র দেখতে পাই অামরা তাঁর পত্রগুচ্ছ নামক গ্রন্থে। সুকান্ত যে গণমানুষের কবি ছিলেন তার প্রমানও অামরা পাই বন্ধুকে লেখা পত্রগুলো থেকে। যখন সুকান্ত ও তার বন্ধু সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র সে সময় "সপ্তামিকা" নামে একটি পত্রিকা সম্পাদনা করতেন দুজনে মিলে। সুকান্ত সম্পাদক, আর অরুণসহ সম্পাদক। পরবর্তীকালে তিনি হলেন বাংলা সাহিত্যের মার্কসবাদী ভাবধারায় বিশ্বাসী এবং প্রগতিশীল চেতনার অধিকারী তরুণ কবি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ, তেতাল্লিশের মন্বন্তর, ফ্যাসিবাদী অাগ্রাসন, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা প্রভৃতির বিরুদ্ধে তিনি কলম ধরেছেন। ১৯৪৪ সালে তিনি ভারতীয় কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যপদ লাভ করেন। 

তার উল্লেখযোগ্য রচনাবলী ছাড়পত্র(১৯৪৭) পূর্বাভাস (১৯৫০) ঘুম নেই (১৯৫০)। বাংলা সাহিত্যের এই কিশোর কবি পার্টি ও সংগঠনের কাজে অত্যাধিক পরিশ্রমের ও নিজের শরীরের উপর অত্যাচার করছেন অনেক।

প্রথমে ম্যালেরিয়া ও পরে দুরারোগ্য ক্ষয়রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৪৭ সালের ১৩ মে কলিকাতার ১১৯ লাউডট স্ট্রিটের রেড এন্ড কিওর হোমে মৃত্যুবরণ করেন।

তাপস মজুমদার 
প্রভাষক, লেখক ও প্রাবন্ধিক।

কামরুজ্জামান রাজু / কামরুজ্জামান রাজু


মন্তব্য করুন

রোনালদোর চিঠি

সুশান্তের কাছ থেকে শুধু 'এই বোতলটা পেয়েছি' রিয়া চক্রবর্তী

নগদ অর্থ সহায়তা ও ঋণ দিবে ফেসবুক

ডুমুরিয়ায় ট্রাকের চাপায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

জৈন্তাপুরে দু-পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা: সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ

অরক্ষিত সাড়ে ৩শ বছরের পুরানো মির্জানগর হাম্মামখানা

অধিকাংশ নদীর পানি কমলেও ঢাকার বহু এলাকা এখনো পানি নীচে

প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের তালিকায় ইউপি চেয়ারম্যানে’র ভাই-ভাতিজাসহ অর্ধশতাধিক আত্মীয়

বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন আসছে ১২ আগস্ট

সাবেক মেজর সিনহা হত্যার ৭ দিন আগেও এক ইউপি সদস্যকে ক্রসফায়ার দেন ওসি প্রদীপ

'জয়তু বঙ্গমাতা' শীর্ষক স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মেচন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশের হাতে রয়েছে যে ১০ ক্ষেপণাস্ত্র

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

যশোরে এবার সরকারি চালসহ ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা আটক

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে সকলের কাছে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যাণ্ড

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

আপনার কাছে জনপ্রিয় খেলা কোনটা ?

  ক্রিকেট

  ফুটবল

  ভলিবল

  কাবাডি

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা