আজ শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮           আমাদের কথা    যোগাযোগ

শিরোনাম

  প্রতিনিধি হইতে ইচ্ছুকরা ০১৭৪৭৬০৪৮১৫ নাম্বারে যোগাযোগ করুন।  

মোতাহার হোসাইন একজন কর্মযোগী আলোকিত মানুষ: মুহম্মদ শফি


মোতাহার হোসাইন একজন কর্মযোগী আলোকিত মানুষ: মুহম্মদ শফি

প্রকাশিতঃ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১   পঠিতঃ 84861


মোতাহার হোসাইন আমার ভক্ত, সুহৃদ। ছোট ভাইয়ের মতো। তিনি কবে, কখন আমার সান্নিধ্যে আসা শুরু করেছিলেন তা বলা কঠিন। তবে এই সম্পর্ক পারিবারিক পর্যায়ে পৌঁছেছিল এবং তা আজও অটুট। অনেক পরে জেনেছি, তিনি আমাকে ‘আইডল’ হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন। মোতাহার হোসাইন তখন দৈনিক পূর্বাঞ্চলের ‘ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি’। তিনি আমার ওপর ‘নাট্যকার মুহম্মদ শফি : সমর্পিত সুন্দর’ শিরোনামে একটি প্রবন্ধ রচনা করেছিলেন, যা পূর্বাঞ্চল সাহিত্য সাময়িকীতে (১ মে, ১৯৮৮) প্রকাশ লাভ করে। প্রসঙ্গত, ২০০০ খ্রিস্টাব্দে আমার ‘আমাদের মধুকবি’ শিরোনামে একটি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়। গ্রন্থটি বন্ধুবর কবি ও গবেষক খসরু পারভেজের সাথে তাঁকেও (মোতাহার হোসাইন) উৎসর্গ করি।

১৯৬৮ খ্রিস্টাব্দের ২৮ সেপ্টেম্বর শনিবার যশোরের ঐতিহ্যবাহী কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে মোতাহার হোসাইন জন্মগ্রহণ করেন। পিতা স্বনামধন্য ব্যবসায়ী আব্দুল মজিদ মালী এবং মাতা সুগৃহিণী ফজিলাতুন্নিসা। ৮ ভাই-বোনের মধ্যে তার স্থান ষষ্ঠ। ১৯৯৬ সালের ২১ নভেম্বর মনিরামপুরের ঐতিহ্যবাহী লাউড়ী গ্রামের মাওলানা শামছুজ্জোহা খানের চতুর্থ কন্যা মাসুমা খানমকে বিয়ে করেন। এক ছেলে ও এক মেয়ে এই দম্পতির।  

মোতাহার হোসাইন ১৯৮৪ খ্রিস্টাব্দে কেশবপুর পাইলট স্কুল থেকে দ্বিতীয় বিভাগে এস.এস.সি, ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে কেশবপুর কলেজ থেকে দ্বিতীয় বিভাগে এইচ.এস.সি এবং ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন দ্বিতীয় বিভাগে গ্র্যাজুয়েশন (বি.এ) ডিগ্রী লাভ করেন। বলা যায়, প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকেই সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে বেড়ে ওঠা অত্যন্ত স্বাধীনচেতা মোতাহার হোসাইন একাডেমিক লেখাপড়া শেষ করে চাকরির গন্ডিতে আবদ্ধ না হয়ে তখনই ক্রীড়া, শিল্প-সাহিত্য, সংস্কৃতি ও সাংবাদিকতা জগতে নিজেকে ব্যাপৃত রাখেন। উল্লেখ্য, সুদীর্ঘ ৩৬ বছরের সাংবাদিকতা জীবনে তিনি সাংবাদিকতার বিভিন্ন বিষয়ের ওপর ১২টি প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। মোতাহার হোসাইন ১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দে যশোর সাহিত্য পরিষদের ৩ মাসের এবং ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে ‘বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী’, যশোর জেলা সংসদ কর্তৃক আয়োজিত ৭ দিনের আবৃত্তি প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন করেন। এ-ছাড়া কেশবপুরের মানব সেবা সংস্থার প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন কালে ১৯৮৮ খ্রিস্টাব্দে ‘বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন’-এর মানবাধিকার ও উন্নয়ন সাংবাদিকতা শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স ও ১৯৯৩ খ্রিস্টাব্দে ‘গণগ্রন্থাগার অধিদপ্তর’ আয়োজিত ঢাকার কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীতে অনুষ্ঠিত গণগ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ১ মাসের প্রশিক্ষণ কোর্স সম্পন্ন করেন। মোতাহার হোসাইন বিভিন্ন সময়ে কৃষি বিষয়ের ওপরও নানান প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। 

১৯৮৪ খ্রিস্টাব্দে মোতাহার হোসাইন এস.এস.সি পরীক্ষা শেষ করে কেশবপুর ‘মধু খেলাঘর আসরে’ তবলা বাদন শেখার জন্যে যাতায়াত শুরু করেন। এ সময়ে খেলাঘর কার্যালয়ে নিয়মিত আসা ‘সাপ্তাহিক কিশোর বাংলা’ (আহমদ জামান চৌধুরী সম্পাদিত) পত্রিকা পাঠ করে এর প্রতি আগ্রহান্বিত হয়ে ওঠেন এবং ছাড়া, গল্প ও কবিতার পাশাপাশি সংবাদ প্রকাশ করতে থাকেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এ সময় তিনি তাঁরই বাল্য-শিক্ষক জহুরুল হক কর্তৃক অনুপ্রাণিত হন; জহুরুল হক তখন ‘দৈনিক রানার’ পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি ছিলেন। বলা যায় মোতাহার হোসাইনের সেই থেকে শুরু। আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁর। তিনি মফস্বল সাংবাদিকতায় কেশবপুর প্রতিনিধি হিসেবে একে একে দায়িত্ব পালন করেছেন দৈনিক পূর্বাঞ্চল, পাঠকের কাগজ, ঢাকার দৈনিক বাংলারবাণী, নব অভিযান, প্রথম আলো, মানব জমিনসহ বিভিন্ন পত্রিকায়। 

তিনি ১৯৯৯ খ্রিস্টাব্দের ২৬ মার্চ প্রতিষ্ঠা-লগ্ন থেকেই ‘সাপ্তাহিক গ্রামের কাগজ’ এর কেশবপুর প্রতিনিধি হিসেবে নিযুক্ত হন। ২০০০ খ্রিস্টাব্দের ২৩ ডিসেম্বর গ্রামের কাগজ দৈনিক হিসেবে আতœপ্রকাশ করলে মোতাহার হোসাইন এর কেশবপুর অফিসের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এ-ছাড়া ২০০২ খ্রিস্টাব্দের ১৭ মার্চ থেকে এটি রঙিন হয়ে প্রকাশিত হলে তিনি কেশবপুর ব্যুরো প্রধান হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০০৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে মোতাহার হোসাইন অত্র পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও ২০০৯ খ্রিস্টাব্দ থেকে সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত আছেন। প্রকাশ থাকে যে, ২০১৭ খ্রিস্টাব্দের ১৯ সেপ্টেম্বর দৈনিক গ্রামের কাগজ ৮ পৃষ্ঠায় উন্নীত হলে এর ১০ দিনের মাথায় ২৮ সেপ্টেম্বর ৩ জেলার অংশ নিয়ে পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মবিনুল ইসলাম মবিন কর্তৃক সোৎসাহে কেশবপুর আঞ্চলিক অফিস উদ্বোধন করার পর থেকে একদল নবীন সাংবাদিকের নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন তিনি। এ-ছাড়া ২০১২ খ্রিস্টাব্দ থেকে দৈনিক সমকালের কেশবপুর প্রতিনিধির দায়িত্বও পালন করে আসছেন। পাশাপাশি তিনি ইলেকট্রোনিক্স মিডিয়া ‘একাত্তর টিভি’ এর নিউজ কালেক্টর ও ইংরেজি দৈনিক ‘অবজারভার’ এর কেশবপুর প্রতিনিধির দায়িত্বে রয়েছেন।

মোতাহার হোসাইন সাংবাদিকতার দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি বহু সামাজিক ও সেবা মূলক কাজের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছেন। ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে সাগরদাঁড়িতে ‘মধুসূদন একাডেমি’ প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন তিনি। জাতীয় স্মারক প্রতিষ্ঠান ‘মধুসূদন একাডেমি’র তিনি অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা-উপপরিচালক। তিনি একাডেমির সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক দলের প্রতিনিধি হয়ে একাধিকবার ভারত সফর করেন। তিনি ১৯৯৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে ২০০২ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সাগরদাঁড়িতে মহাকবি মধুসূদনের জন্মবার্ষিকীর জাতীয় অনুষ্ঠান আয়োজনে অনন্য ভূমিকা রাখেন এবং এ-উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকার সহকারী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে তিনি বিপুল ভোটে কেশবপুর পাবলিক লাইব্রেরীর সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন। কেশবপুর ক্লাবের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবেও তিনি বহুদিন দায়িত্ব পালন করেন। এ-সময়ে তিনি টিম ম্যানেজার হয়ে ফুটবলে দুই দুইবার ‘মধুসূদন গোল্ডকাপ’ বিজয়ের গৌরব অর্জন করেন। বলা যায়, তিনি ‘মধু খেলাঘর আসর’ ও ‘উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী’র সাথে দীর্ঘদিন ধরে সম্পৃক্ত। বর্তমান তিনি উদীচী কেশবপুর সংসদের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য। 

উল্লেখ্য, সুদীর্ঘকাল যাবৎ মোতাহার হোসাইনের লেখালেখির পরিব্রজগ। অথচ অদ্যাবধি তাঁর কোন গ্রন্থ প্রকাশিত হয়নি। হয়তো আগামী কোন এক সময়ে তাঁর নির্বাচিত লেখা নিয়ে অন্তত একটি গ্রন্থ হলেও প্রকাশিত হবে, এমন আশাই করি। তাঁর অসংখ্য ছড়া, কবিতা ও গল্প প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন সাহিত্য সাময়িকী, সাপ্তাহিক ও দৈনিক পত্রিকায়। আমি নিজেও আমার সম্পাদিত ‘বাংলাদেশের আঞ্চলিকভাষার কবিতা’ (২০০৬) গ্রন্থে তাঁর রচিত একটি আঞ্চলিকভাষার কবিতা স্থান দিয়েছিলাম। প্রসঙ্গত, আমার আঞ্চলিকভাষায় রচিত বিভিন্ন কবিতা আবৃত্তি করে তিনি প্রভূত জনপ্রিয়তাও অর্জন করেন। একসময় কেশবপুর শিশু একাডেমির আবৃত্তির শিক্ষক ছিলেন তিনি। অভিনয়েও কম যাননি তিনি। আমার রচিত বিভিন্ন নাটকসহ অসংখ্য নাটকে সফল অভিনয় করেছেন মোতাহার হোসাইন। প্রায় অর্ধশত সাহিত্য সাময়িকী ও সংকলন সম্পাদনার কৃতিত্ব রয়েছে তাঁর। তথ্য অধিকার আইন প্রয়োগ করে তাঁর লেখা বহু নিউজ ও নিবন্ধ পত্র-পত্রিকা এবং গ্রন্থে প্রকাশিত হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি একাধিক গোলটেবিল বৈঠক ও বহু প্রশিক্ষনে অংশ নিয়েছেন।

মোতাহার হোসাইন একজন প্রশিক্ষিত চাষিও। সফল চাষি মোতাহার হোসাইন বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ব্যবহার করে বিভিন্ন শস্যের উৎপাদনে সুনাম অর্জন করেছেন। এখনও তিনি নানা চাষ কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। বর্তমানকার হলুদ সাংবাদিকতা ও মফস্বল সাংবাদিকতার অবক্ষয়ে নিজেকে চাষি বা কৃষক পরিচয় দিতে গর্ববোধ করেন তিনি। 

মোতাহার হোসাইন একজন দক্ষ সাংবাদিক হিসেবে কেশবপুর প্রেসক্লাবের যথাক্রমে কোষাধ্যক্ষ, যুগ্ম সম্পাদক ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে দীর্ঘদিন সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। এ-ছাড়া দৈনিক গ্রামের কাগজের মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি তিনি। বিগত ২০০৮ খ্রিস্টাব্দে তত্ত¡াবধায়ক সরকারের আমলে ‘দুর্নীতি দমন কমিশিন’ (দুদক) মোতাহার হোসাইনকে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য মনোনীত করে এবং ২০১৩ খ্রিস্টাব্দ থেকে অদ্যাবধি এই কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। 
মোতাহার হোসাইন এশিয়াটিক সোসাইটি কর্তৃত নিযুক্ত হয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে গবেষণার কাজও করেছেন। তিনি একাধিকবার কেশবপুর পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রাক্তন এমএনএ সুবোধ মিত্র কল্যাণ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা যুগ্ম সম্পাদক। এ ছাড়া ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি হিসেবে সুবোধ মিত্র অটিজম ও প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য তিনি। মোতাহার হোসাইন ২০১৫ খ্রিস্টাব্দে যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর এলাকা পরিচালক নির্বাচিত হন এবং একাধিক বার ‘সমিতি বোর্ড’ এর সচিব নির্বাচিত হয়েছেন। ২০১৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি দ্বিতীয় বার অত্র পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কেশবপুর উপজেলার পরিচালক নির্বাচিত হন এবং ‘সমিতি বোর্ড’ এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাস করেও মোতাহার হোসাইন তাঁর সবটুকু সময় কর্তব্য, কর্ম ও দায়বদ্ধতার ছন্দে বেঁধে নিয়েছেন, আর সেখানেই তাঁর বড় সাফল্য ও আশার কথা।
বহুমুখি প্রতিভার অধিকারী মোতাহার হোসাইন সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য এ-যাবৎ বেশ কয়েকটি পদক ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। তিনি অসাম্প্রদায়িক চেতনার সাংবাদিকতার জন্যে দৈনিক সংবাদের প্রয়াত সম্পাদকের নামে প্রবর্তিত ‘আহমদুল স্মৃতি স্বর্ণপদক’ (২০০৪) ও ‘স্বস্তি পদক’ (২০০৫) লাভ করেন। তাঁর প্রাপ্ত অন্যান্য পুরস্কার, পদক ও সম্মাননা হলো; সুফলাকাটি ইউনিয়ন পরিষদ সম্মাননা (২০০৫), তথ্য অধিকার আইনের বিশেষ পুরস্কার (২০০৯), মধুসূদন একাডেমি স্মারক সম্মাননা (২০১৩); মধু খেলাঘর সম্মাননা (২০১৭), ‘চাঁদের আলো স্মারক সম্মাননা’ (২০১৮ ও ২০২০) এবং মানবাধিকার শান্তি স্বর্ণপদক (২০১৮)। তার সবচেয়ে বড় অর্জন মাতৃত্ব ভাতার অনিয়ম ও দুর্নীতি নিয়ে দৈনিক গ্রামের কাগজে প্রকাশিত সংবাদের জন্য আন্তর্জাতিক সংগঠন ট্রান্সারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) কর্তৃক ‘অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরষ্কার-২০১৯’ প্রাপ্তি। এ-ছাড়া তাঁর প্রাপ্ত দৈনিক গ্রামের কাগজের বর্ষসেরা ও শ্রেষ্ঠ সাংবাদিকতার ৬টি পুরস্কার রয়েছে। 

মোতাহার হোসাইন এক কর্মযোগী আলোকিত মানুষ। সত্য অন্বেষায় নিয়ত-প্রতিনিয়ত কর্ম উদ্যোগ নিয়ে দুরন্ত অভিযাত্রা মোতাহার হোসাইনদের। সমাজ, দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিবেদিত এ-সকল মানুষের জয় অবশ্যম্ভাবী এবং দ্রুব। 

মোতাহার হোসাইনের ৫০তম জন্মবর্ষ ইতোমধ্যেই পেরিয়ে গেছে। এ রকম একজন মানুষকে নিয়ে অনেকেই স্বত:স্ফূত লিখতে এগিয়ে আসবেন, এমনই আশা। তাঁর অর্ধশত জন্মবর্ষ উপলক্ষ করেই আমার এই যৎসামান্য লেখা। আগেই বলেছি, মোতাহার হোসাইন আমার ছোট ভাইয়ের মতো। তাঁর সর্বাঙ্গীন সাফল্য আমার সর্বদা কাম্য। #

মুহম্মদ শফি : শিক্ষাবিদ, কবি, নাট্যকার ও সব্যসাচী লেখক। প্রকাশিত গ্রন্থ ৭৪টি। 
মতিঝিল কলোনী, মতিঝিল, ঢাকা।

কপোতাক্ষ এডমিন / কপোতাক্ষ এডমিন


মন্তব্য করুন

নিরাপদ সড়কসহ ৯ দফা দাবিতে আজ ফের রাস্তায় শিক্ষার্থীরা

সহিংসতার আশংকার মাঝে আগামীকাল তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন

মাথা নত করার জন্য খালেদা জিয়ার জন্ম হয়নি: গয়েশ্বর

পঞ্চম ধাপে যশোরের যে ২৪ ইউপিতে ভোট ৫ জানুয়ারি

প্রতি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ জনেরও বেশি

চেয়ারম্যান-মেম্বারদের লক্ষ্য করে গুলি, প্রাণ গেলো যুবলীগ নেতার

আইনের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই-কাদের, রোগমুক্তি কামনায় বিএনপির দোয়া মাহফিল

রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলে মানবিকভাবে দেখবেন প্রধানমন্ত্রী

কেশবপুরে বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে হনুমানের মৃত্যু

হানাদার মুক্ত দিবস পালনে আমরা সাজাবো কেশবপুর সংগঠনের নানা আয়োজন

ঢাকাসহ দেশ কাঁপলো ভূমিকম্পে

যশোরে দুলাভাইয়ের সাথে পরকীয়া-বিয়ে, কিশোরীর আত্মহত্যা

কালীগঞ্জে সুপারি গাছ থেকে পড়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে সিয়াম!

কারাগার থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এহসান হাবিব সুমন এর খোলা চিঠি

এসএসসি পরীক্ষাঃ বাংলা দ্বিতীয় পত্রে বেশি নম্বর সহজেই...

যেকোন সময় ঘোষণা হতে পারে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি

যশোরে এবার সরকারি চালসহ ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির নেতা আটক

লালমনিরহাটে এক বিধবা মা বাইসাইকেল চালিয়ে ৪২ বছর স্বাস্থ্যসেবা দিচ্ছেন

৫০ বছর ধরে দল করেও সুবিধা বঞ্চিত আ'লীগের প্রচার সম্পাদক নূরুল হক

নোংরা রাজনীতির শিকার যশোরের এমপি স্বপনের ছেলে শুভ

যশোরের রাজগঞ্জে ৫৬ যুবকের উদ্যোগে ভাসমান সেতু র্নিমাণ

কেশবপুরের শাহীনের সেই ভ্যানটি উদ্ধার, আটক তিনজন

নারী সহকারীর সঙ্গে ডিসির অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল, সংবাদ না করার অনুরোধ

ব্যাচমেট হিসেবে সাইয়েমার পক্ষে ক্ষমা চাইলেন কেশবপুরের এসিল্যান্ড

আমাদের নিউজ পোর্টাল আপনার কেমন লাগে ?

  খুব ভালো

  ভালো

  খুব ভালো না

  ভালো লাগে না

অফিস ঠিকানা  

আর এল পোল্ট্রি, উপজেলা রোড, কেশবপুর বাজার, যশোর।
মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

প্রকাশক ও সম্পাদক 

মোঃ মাহাবুবুর রহমান (মাহাবুর)

মোবাইলঃ   ০১৭১৯২৮০৮২৭
ইমেইলঃ   info@kopotakkhonews24.com

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা